রোজার সাথে তারাবীহ নামাযের সম্পর্ক কী?

রোজার সাথে তারাবীহ নামাযের সম্পর্ক কী?

প্রশ্নঃ রমজানের রোজার সাথে তারাবীহ নামাযের কোন সম্পর্ক আছে কিনা? তারাবীহ নামায পড়ার হুকুম কি?

উত্তরঃ পবিত্র রমজানের রোজার সাথে তারাবীহ নামাযের সম্পর্কে নেই এ কথা ঠিক, কিন্তু ঐ মাসের সাথে তারাবীহ নামায বিশেষ ভাবে সম্পর্কিত, হাদীছ শরীফে আছে, মহান আল্লাহ রমজান মাসে দিনে রোজা ফরজ করেছেন এবং মহা নবী (দ.) রাতে তারাবীহ নামায সুন্নত হিসেবে ঘোষণা করেছেন।

এ হাদীসের পরিপ্রেক্ষিতে মাননীয় ফোকাহায়ে কেরাম প্রত্যেক নর-নারীর প্রতি এশার নামায বাদ তারাবীহ নামায সুন্নতে মুয়াক্কাদাহ বলে সর্বসম্মত মত প্রকাশ করেছেন। এ নামাযের পরিমাণ ২০ রাকয়াত এবং প্রত্যেক মহল্লার মসজিদে এর জামায়াত কায়েম করা সুন্নতে মুয়াক্কাদা আলাল কেফায়া। মহিলারা নিজ নিজ ঘরে পর্দায় থেকে তারাবীহ নামায পড়বে। যদি কোন পুরুষ ওজরে নিজ ঘরে তারাবীহ পড়তে চায়, তাহলে বাধা নেই। তবে তার পেছনে মুহাররাম মহিলারা এক্তেদা করলে সকলেই জমাতের ছওয়াবপ্রাপ্ত হবে। যথা সম্ভব প্রত্যেক মহল্লার মসজিদে তারাবীহতে খতমে কুরআনের ব্যবস্থা করাও সুন্নতে মুয়াক্কাদাহ। যারা স্বেচ্ছায় তারাবীহ নামায জামাতে হৌক বা নিজ ঘরে হৌক তরক করবে, তারা সুন্নতে মুয়াক্কাদাহ তরকের গুনাহের জন্য দায়ী হবে। এ ব্যাপারে তর্কবিতর্কের কোন অবকাশ নেই। সঠিক মাসআলা সম্পর্কে নিশ্চিত জ্ঞান লাভ না করে যারা সমাজকে বিভ্রান্ত করবে, তারা নিজেদের ও সংশ্লিষ্ট অন্যান্য সকল গুনাহগারদের সমপরিমাণ গুনাহের জন্য দায়ী হবে।

তথ্যসূত্র: ছারছীনা দারুস্সুন্নাত

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

20 + ten =